নেয়ামতপুর চরে ভূমি মালিকদের উপর ভূমিদস্যুদের হামলা ॥ গুরুতর আহত ২৫

প্রচ্ছদ » অপরাধ » নেয়ামতপুর চরে ভূমি মালিকদের উপর ভূমিদস্যুদের হামলা ॥ গুরুতর আহত ২৫
মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪



স্টাফ রিপোর্টার ॥

ভোলার দৌলতখানের মেঘনার মধ্যবর্তী বিচ্ছিন্ন নেয়ামতপুর চরে জমির মালিকদের উপর হামলা চালিয়েছে ভূমিদুস্য সন্ত্রাসীরা। এসময় হামলাকারী সন্ত্রাসীরা ৪টি বোমা বিস্ফোরণ ঘটনায় ও ফাকা গুলি ছুড়ে। এতে অন্তত ২৫জন চর মালিক গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদেরকে ভোলা সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সোমবার (৬ মে) দুপুরে দৌলতখানের বিচ্ছিন্ন নেয়ামতপুর চরে এই হামলার ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন, নেয়ামতপুর চরের জমির মালিক মোঃ মহিউদ্দিন আহমেদ, মুশফিকুর রহমান, ভুট্টু পিটার, আলী হোসেন, মোঃ শহিদ, কামাল হোসেন, শাহাবুদ্দিনসহ অন্তত ২৫জন।

আহতদের সূত্রে জানা গেছে, সোমবার (৬ মে) দুপুর সাড়ে ১২টায় ভূমি মালিকরা দৌলতখান উপজেলার নেয়ামতপুর চর দেখতে ট্রলার যোগে রওনা দেন। এসময় প্রায় ৩ শতাধিক চর মালিক উপস্থিত ছিলেন। চর মালিকদের ট্রলারগুলো নেয়ামতপুর চরের কাছে গেলে ভূমিদস্যু বশির আহমেদ হাওলাদার, মোঃ ইউসুফ জিলদার, ফিস কামাল এর নেতৃত্বে অস্ত্রধারী ১০০/১২০জনের একটি সন্ত্রাসী বাহিনী দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে ভূমি মালিকদের উপর অতর্কিত হামলা করে। এসময় বশির হাওলাদার, ইউসুফ বাহিনী ৪টি বোমা বিস্ফোরণ ঘটনায় ও ফাঁকা গুলি ছুড়ে। হামলায় মোঃ মহিউদ্দিন আহমেদ, মুশফিকুর রহমান, আলী হোসেন, মোঃ শহিদ, কামাল হোসেন, ভুট্টু পিটার, শাহাবুদ্দিনসহ অন্তত ২৫জন গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদেরকে এলোপাথাড়ি পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত যখম করে। তাদেরকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালসহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে মহিউদ্দিন আহমেদ, মুশফিকুর রহমান, আলী হোসেনসহ কয়েকজনের অবস্থা খুবই গুরুতর।

আহত মহিউদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা প্রকৃত ভূমি মালিকরা সোমবার দুপুরে ট্রলার যোগে নেয়ামতপুর চরের উদ্দেশ্যে রওনা দেই। এসময় ৩ শতাধিক চরের মালিক উপস্থিত ছিলেন। আমাদের ট্রলারগুলো নেয়ামতপুর চরের কাছাকাছি গেলে ভূমিদস্যু বশির আহমেদ হাওলাদার, ইউসুফ জিলদার, ফিস কামাল এর নেতৃত্বে ১০০/১২০জনের একটি অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী বাহিনী আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। তারা বোমা বিস্ফোরণ, ফাঁকা গুলি ছুড়ে। তাদের হামলায় আমাদের প্রায় ২৫জনের মতো চর মালিক গুরুতর আহত হয়। আমাদের সাথে থাকা মোবাইল, নগদ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। আমার হাতে ধাড়ালো বগি দাও দিয়ে কোপ দিলে আমি রক্তাক্ত জখম হই। এছাড়াও বেশ কয়েকজন গুরুতর আহত হয়েছে। আহতদেরকে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চরের প্রকৃত মালিক আমরা। বশির আহমেদ, ইউসুফ, কামাল বাহিনী জোরপূর্বক চর দখল করে রেখে বিভিন্ন মানুষের কাছে লগ্নি দিয়ে বছরে প্রায় ১ কোটি টাকার উপরে নিয়ে যায়। তাদের চরে কোন জমি নেই। তারা ক্ষমতার অপব্যবহার করে চর দখলে রেখেছে। আমরা এই চরের জমির মালিকরা আদালতে মামলা করেছি। বিজ্ঞ আদালত আমাদের পক্ষে রায় দিয়েছে। তারপরও আমরা চরের জমি ভোগ করতে পারছি না। ভূমিদস্যুরা অস্ত্রধারী সন্ত্রাসী নিয়ে চর দখলে রেখেছে। আমরা চর মালিকরা যাতে শান্তিপূর্ণভাবে নেয়ামতপুর চর ভোগদখল করতে পারি সে জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে প্রশাসনের কাছে জোর দাবী জানাচ্ছি।

---

মুশফিকুর রহমান জানান, দৌলতখান উপজেলার নেয়ামতপুর ইউনিয়ন নদী গর্ভের বিলিন হয়ে যায়। ওই ইউনিয়নে বসবাসকারী বাসিন্দারা নদী ভাঙ্গনের ফলে বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে নতুন বসতি করে। নেয়ামতপুর চর নদী গর্ভে বিলিন হয়ে পুনরায় আবার চর জেগে উঠে। ওই চর জেগে উঠার পর ভূমির মালিকরা চর দখলে নেয়। দীর্ঘদিন ভোগদখলে থাকার পর বশির আহমেদ হাওলাদার, ইউসুফ জিলদার, ফিস কামালের নেতৃত্বে ভূমিদস্যুরা ক্ষমতার জোরে নেয়ামতপুর চর দখলে নেয়। ২০০৬ সালে চরের মালিকরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে চরের জমি বুঝে পাওয়ার জন্য মোঃ মহিউদ্দিন আহমেদ, মুশফিকুর রহমানসহ ৬জন বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। ওই মামলা দীর্ঘদিন চলার পর হাইকোর্ট ও সুপ্রিম কোর্ট চরের প্রকৃত মালিকদের পক্ষে রায় দেয়। রায়ের পর কয়েক বছর জমির মালিকরা নেয়ামতপুর চর ভোগদখল করে। কিন্তু বশির আহমেদ হাওলাদার, ইউসুফ জিলদার, ফিস কামালের নেতৃত্বে একটি ভূমিদস্যু বাহিনী চর পুনরায় দখলে নিয়ে মহিষ মালিক, কৃষকসহ বিভিন্ন মানুষের কাছে লগ্নি দেয়। যার ফলে চরের মূল মালিকরা দখল বঞ্চিত হয়।

ইউসুফ জিলাদার জানান, সোমবার দৌলতখান সদর থেকে ভবানীপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম নবী নবুর নেতৃত্বে ১০ থেকে ১২টি ট্রলার যোগে কয়েক শত লোক চর দখল করতে যায়। এসময় কৃষকদের সয়াবিন তুলে নিতে চাইলে ও চর দখল করতে গেলে গোলাম নবী নবু গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হামলা ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

দৌলতখান থানার ওসি তদন্ত এরশাদ খান জানান, এই ঘটনার পর দৌলতখান থানা পুলিশের একটি টিম চিকিৎসারত আহতদের খোঁজখবর নেন। আর এই ঘটনায় অভিযোগ পেলে আমরা তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর এই ঘটনার পরে দুর্গম চরাঞ্চল হওয়ায় সতর্ক অবস্থানে আছে পুলিশও।

বাংলাদেশ সময়: ৫:৩৭:২৪   ১০৭ বার পঠিত  




পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)

অপরাধ’র আরও খবর


পশ্চিম ইলিশায় ৩ ঘরে দূদর্শ চুরি
ভোলায় মেঘনা নদী থেকে পাঙ্গাস মাছের অবৈধ পোনা শিকারের ৫টি চাই ধ্বংস
ভোলায় দুই মাদক কারবারীকে সাজা
তজুমদ্দিনে ঢাকাগামী লঞ্চ থেকে ৩শ কেজি পাঙ্গাসের পোনা আটক
ওমরাহ পাঠানোর নামে হাজী কামালের প্রতারণা
চরফ্যাশনে ভূমিদস্যু মুছার নেতৃত্বে নারী ও শিশুর ওপর সন্ত্রাসী হামলা
লালমোহনে জমি দখলের জন্য মালিকের উপর হামলার অভিযোগ
দালালদের খপ্পড়ে পড়ে নিঃস্ব জীবন ॥ চরফ্যাশন উপজেলার পাচঁ প্রবাসীর আর্তনাদ!
সৎ মায়ের বিরুদ্ধে সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন
চরফ্যাশনে ব্যবসায়ীকে হাত পা বেধেঁ মারধরের অভিযোগ



আর্কাইভ