ভোলায় জমি নিয়ে বিরোধ স্কুল শিক্ষককে কুপিয়ে জখম

---

স্টাফ রিপোর্টার ॥
ভোলায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে আল আমিন মাস্টার (৬০) নামের এক অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষককে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (২১ নভেম্বর) বিকেলে ভোলা সদর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়ন ৮নম্বর ওয়ার্ড সামছুদ্দিনের পাকা রাস্তার মাথায় এ ঘটনা ঘটে।
আহত শিক্ষকে প্রথমে ভোলা সদর হাসপাতালে পরে আসংঙ্কা জনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তী করা হয়।
আহত অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক আল আমিন মাস্টার সদর উপজেলার পশ্চিম শিবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক পদে কর্মরত ছিলেন । তিনি সদর উপজেলা শিবপুর ইউনিয় ৬নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষক আল আমিন মাস্টারের সাথে তার প্রতিবেশি মাইন উদ্দিনের জমি কেনা-বেচার বায়না নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এক পর্যায়ে উভয় পক্ষই থানায় মামলা দায়ের করেন। জমিজমা ও মামলার জের নিয়ে সোমবার বিকেলে আতংকিত হামলা করে তাকে গুরুতর জখম করে।
আল আমিন মাস্টারের ছেলে ইমতিয়াজ জিম বলেন, আমার প্রতিবেশি মাইন উদ্দিনের সাথে আমাদের জমি জমার বিষয় নিয়া পূর্ব হইতে বিরোধ চলমান আছে। মাইন উদ্দিন গংরা আামদের জমি জোরপূর্বক ভোগদখলের চেষ্টা করে আসছি। আমরা তাদের প্রতিবাদ করলে তারা আমাদের বিভিন্ন ধরনের হুমকি ও ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে। আমরা  স্থানীয় ভাবে একাধিকবার সালিশ মিমাংসার চেষ্টা করলে। তারা স্থানীয় সালিশ মিমাংসা তোয়াক্কা না করে। কিছুদিন পূর্বে আমাদের জমি জোর দখল করে আমাদের উপর হামলা করে এতে ১০ গুরুতর জখম করে। এতে ভোলা সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। উক্ত মামলায় আসামির জামিনে আসে আমাদে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়া আসতেছে।
গত সোমবার (২১ নভেম্বর) বিকালে আমার বাবা তার শশুর বাড়ি থেকল নিজ মটরসাইকেল যোগে বাড়িতে আসার উদ্দেশ্যে ৮নম্বর ওয়ার্ডের সামছুদ্দিনের বাড়ীর সামনে উত্তর পার্শ্বে পাকা রাস্তার উপর আসলে মাইনুউদ্দিন গংরা পরিকল্পিতভাবে মটরসাইকেলর গতি রোধ করে পূর্ব বিরোধের জের ধরে এলোপাথারীভাবে মারধর করে। এক পর্যায়ে মাইনউদ্দিন এর হাতে থাকা ধারালো বগি দা দিয়া হত্যার উদ্দেশ্যে তার মাথায় কোপ দেয়। এতে আমার বাবার মাথা ফেটে রক্তাক্ত জখম হয়। পরে বাবা মাটিতে লুটিয়ে পরে এসময় সন্ত্রাসী সালাউদ্দিন, তামিম, মনির হোসেন, মসিউর ও মনির উদ্দিন এর হাতে থাকা লোহার রড দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাথাড়ি মেরে হাতে পায়েসহ সরিলেন বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম করে।
এসময় বাবার সাথে থাকা মটরসাইকেলটি ভাংচুর করে। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা আশংকা জনক দেখে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। তিনি বর্তমানে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসারত আছেন।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত মাইনুদ্দিনের সাথে যোগাযোগ করলে তার ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। তাই তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।
এদিকে ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীন ফকির জানান, এঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে অভিযুক্ত দুই জনকে আটক করা হয়েছে।


এ বিভাগের আরো খবর...
তজুমদ্দিনের মেঘনায় মুক্তিপণের দাবীতে ১৫ জেলে অপহরণ তজুমদ্দিনের মেঘনায় মুক্তিপণের দাবীতে ১৫ জেলে অপহরণ
ভোলায় খামারিদের পশুর মানবৃদ্ধি করার লক্ষ্যে আদর্শ প্রাণীসেবার সভা অনুষ্ঠিত ভোলায় খামারিদের পশুর মানবৃদ্ধি করার লক্ষ্যে আদর্শ প্রাণীসেবার সভা অনুষ্ঠিত
লালমোহনে নিউমোনিয়া ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা লালমোহনে নিউমোনিয়া ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা
ভোলায় জেলা পরিষদের উদ্যোগে শিক্ষা বৃত্তি ও গুণী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত ভোলায় জেলা পরিষদের উদ্যোগে শিক্ষা বৃত্তি ও গুণী সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত
লালমোহনে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে মামলা লালমোহনে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে মামলা
চরফ্যাশনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত চরফ্যাশনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সপ্তাহ এবং বিজ্ঞান অলিম্পিয়াড অনুষ্ঠিত
ভোলায় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতাকে সংবর্ধনা ভোলায় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় নেতাকে সংবর্ধনা
বোরহানউদ্দিনে শীতার্তদের কম্বল বিতরণ বোরহানউদ্দিনে শীতার্তদের কম্বল বিতরণ
ভোলার বাপ্তায় মাদ্রাসা ছাত্রদের মাঝে আর.আর হেল্প লাইনের পক্ষ থেকে কম্বল বিতরণ ভোলার বাপ্তায় মাদ্রাসা ছাত্রদের মাঝে আর.আর হেল্প লাইনের পক্ষ থেকে কম্বল বিতরণ
চরফ্যাশনে জমিজমার বিরোধের জেরধরে এক গৃহবধূ হত্যা ॥ আহত-১ চরফ্যাশনে জমিজমার বিরোধের জেরধরে এক গৃহবধূ হত্যা ॥ আহত-১

ভোলায় জমি নিয়ে বিরোধ স্কুল শিক্ষককে কুপিয়ে জখম
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)