আ’লীগ ১৪ বছরে বিএনপির উপর কোন অত্যাচার নির্যাতন করেনিঃ তোফায়েল আহমেদ

আদিল হোসেন তপু ॥
আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য, সাবেক বানিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, আওয়ামী লীগ ২০০৮ সাল থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত টানা ১৪ বছর ক্ষমতায় থাকলেও বিএনপির উপর কোন অত্যাচার নির্যাতন করেনি। অথচ বিএনপি ২০০১ সালে ক্ষমতায় থাকাকালীন আওয়ামী লীগের কর্মীরা বাড়িতে থাকতে পারেনি। এলাকা ছেড়ে পালিয়ে বেড়িয়েছে। আওয়ামী লীগ সেই রাজনীতি করেনা বলে তিনি জানান। সোমবার (০৮ আগস্ট) সন্ধ্যায় ভোলা সদর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নকর্মীদের সাথে সৌজন্য সফর করা শেষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিমকালে তিনি এসব কথা জানান।

---

এসময় তোফায়েল আহমেদ আরো বলেন, ভোলায় পুলিশের সাথে সংঘর্ষের জন্য মূল কারণ বিএনপি। তারা পুলিশের উপর আকস্মিক হামলা করেন। বাধ্য হয়ে পুলিশ আত্মরক্ষার জন্য গুলি করে। এই ঘটনায় দুজন মারা যায়, এর জন্য আমি দু:খ প্রকাশ করছি। বিএনপির হামলার ঘটনায় অনেক পুলিশ সদস্য আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। নিজেরাও আহত হয়েছে। তবে বিএনপি নেতা-কর্মীরা পুলিশের উপর হামলা না করলে এই ধরনের ঘটনা ঘটতো না বলে তিনি জানান।
এসময় তোফায়েল আহমেদ আরো বলেন, আওয়ামী লীগ তৃর্ণমূল পর্যায়ে সাংগঠনিক সফর করলেও বিএনপি তা করেনা। তাই তাদের সাংগঠনিক ভিত্তি নেই। বিএনপি তেল গ্যাস নিয়ে কথা বলে তাদের ক্ষমতার সময় কি অবস্থা ছিলো বলে প্রশ্ন রাখেন তোফায়েল আহমেদ? তিনি বলেন, আমরা এখন ২৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করি। আমরা যখন ৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ রেখে গেছি তাদের সময় ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হতো। পৃথিবীর সব দেশেই কম বেশি সংকট হয়। বাংলাদেশ তার বাইরে নয়। প্রধানমন্ত্রীর দৃঢ়তার কারণে এই সংকট অচিরেই কেটে যাবে বলে তিনি বলেন।
এসময় তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একটি জনবান্ধব দল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন শহর থেকে গ্রামেও এসেছে। এর বাইরে নয় ভোলাও। ভোলার অধিকাংশ কাজই আমি সম্পন্ন করেছি। রাস্তাঘাট, ব্রীজ, কালভার্ট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। একটি কাজ অসম্পূর্ন রয়েছে তা হলো ভোলা-বরিশাল ব্রীজ। পদ্ম সেতু হয়ে গেছে, এখন প্রাধনমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অচিরেই ভোলা-বরিশাল ব্রীজের কাজ সম্পন্ন হবে।
তোফায়েল আহমেদ ভোলার উন্নয়ন প্রসঙ্গে বলেন, ভোলাকে সুন্দর করে সাজাতে ব্যাপক উন্নয়ন কাজ চলছে। রাস্তার কাজ শেষ হলে সুন্দর চমৎকার পরিবেশ সৃষ্টি হবে। তিনি নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থেকে আগামী নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত থাকতে সার্বিক কাজে সহায়তা করেত আহবান জানান।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সাবেক ডেপুটি কমান্ডার মো. সফিকুল ইসলাম, ভোলা সদর উপজেলা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইউনুছ, ভোলা পৌরসভার প্যানেল মেয়র সালাউদ্দিন লিংকন, ভোলা জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক মো: শাহে আলম, ভেলুমিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুস সালাম মাস্টার ও ভেদুরিয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোস্তফা কামাল প্রমুখ।
এর আগে তোফায়েল আহমেদ ভেলুমিয়া ইউনিয়নের শরীফখা বাজার, ভেলুমিয়া ইউনিয়ন বাজার, ভেদুরিয়া এলাকায় ৫টি স্পটসহ ১৫টি স্থানে আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে পথ সভা করেন।
এদিকে প্রিয় নেতাকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য দলীয় নেতাকর্মীরা ভেদুরিয়া ও ভেলুমিয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন পয়েন্টে ভীর
জমাতে থাকেন। তোফায়েল আহমেদ ভেদুরিয়া ও ভেলুমিয়া যাওয়ার সাথে সাথে হাজার উচ্ছ্বসিত নেতাকর্মী মুহূর্মুহু শ্লোগান দিতে থাকে। এসময় নেতাকর্মীরা তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।
এদিকে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য সাবেক বানিজ্য মন্ত্রী ভোলা-১ আসনের সংসদ সদস্য তোফায়েল আহমেদ এমপি বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী, বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব তার কোন তুলনা হয়না। বঙ্গমাতা বঙ্গবন্ধুকে সহযোগীতা অনুপ্রেরনা না যোগাতেন তাহলে বঙ্গবন্ধু এই দেশকে স্বাধীনতায় ভূমিকা রাখা সম্ভব হতোনা।
সোমবার দুপুরে ভোলা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মজিবের ৯৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এক দোয়া মোনাজাত ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠানে তোফায়েল আহমেদ একথা বলেন।
এসময় তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক অনুপ্রেরনা যোগিয়েছেন বঙ্গমাতা। ১৯৬৯ সালে যখন বঙ্গবন্ধু জেলে তখন বঙ্গমাতার সাথে পরামর্শ নিয়ে আমরা রাজজৈনিক কর্মসূচী পালন করে থাকি। বঙ্গমাতা আমাদের ছাত্রলীগের বিভিন্ন অনুষ্ঠানের খরচ দিতেন।
৩ মাসের ছাত্রলীগের অফিস ভাড়া দিতে পারিনি। বঙ্গমাতা সেই ভাড়া পরিশধ করতে সহযোগিতা করেছেন বলে জানান।
এসময় তোফায়েল আহমেদ বলেন, বঙ্গবন্ধু যখন জেল খানায় তখন বঙ্গমাতা তাকে খাতা দিয়ে আসতেন। আজ জেল খানায় বঙ্গবন্ধুকে দিয়ে আসা খাতায় বঙ্গবন্ধু বই লিখেছেন। সেই বই দুটি হলো অসমাপ্ত আত্মজীবনী ও কারাগারে রোজনামচা।
বঙ্গমাতার আদর্শ ও ত্যাগের দৃষ্টান্ত বাঙ্গালী নারীদের জন্য অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে বলে জানান। তিনি বলেন, ১৯৬৬ সনে ৬ দফা আন্দোলনে জনসমর্থন আদায় ও জনগণকে উদ্বুদ্ধ করতে লিফলেট হাতে রাস্তায় নেমেছিলেন বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব।
তাঁর নিজের অলঙ্কার বিক্রি করে সংগঠনের প্রয়োজনীয় চাহিদা মিটিয়েছিলেন তিনি। তাঁর এ আদর্শ ও ত্যাগের দৃষ্টান্ত বাঙ্গালী নারীদের জন্য অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।
এসময় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ মঈনুল হোসেন বিপ্লব, ভোলা সদর উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোঃ ইউনুছ, সাবেক যুগ্ম সাধারণ স¤পাদক এনামুল হক আরজুসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা মজিবের ৯৩তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে দোয়া মোনাজাত শেষে অসহায় দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরন করা করেন তোফায়েল আহমেদ।


এ বিভাগের আরো খবর...
আওয়ামী লীগ সরকারের এসব উন্নয়ন বিএনপি দেখে না: তোফায়েল আহমেদ আওয়ামী লীগ সরকারের এসব উন্নয়ন বিএনপি দেখে না: তোফায়েল আহমেদ
ভোলায় ১১৬টি দুর্গাপূজার মন্ডপে থাকবে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভোলায় ১১৬টি দুর্গাপূজার মন্ডপে থাকবে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা
মনপুরা উপকূলের ঘরে ঘরে ছড়িয়ে পড়েছে জ্বর ও চোখের অসুখ মনপুরা উপকূলের ঘরে ঘরে ছড়িয়ে পড়েছে জ্বর ও চোখের অসুখ
লালমোহনে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে নিপীড়ন, প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার লালমোহনে তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রীকে নিপীড়ন, প্রধান শিক্ষক গ্রেফতার
লালমোহনে সাপের কামড়ে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু লালমোহনে সাপের কামড়ে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু
নানা আয়োজনের মধ্যে ভোলায় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন নানা আয়োজনের মধ্যে ভোলায় প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালন
ঢাবি ছাত্রদলের উপর ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে ভোলায় বিক্ষোভ ঢাবি ছাত্রদলের উপর ছাত্রলীগের হামলার প্রতিবাদে ভোলায় বিক্ষোভ
বোরহানউদ্দিন নানা আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত বোরহানউদ্দিন নানা আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন পালিত
ভোলায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে পিটিয়ে জখম করেছে পাষন্ড স্বামী ভোলায় যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে পিটিয়ে জখম করেছে পাষন্ড স্বামী
শেখ হাসিনার জন্যই বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল: এমপি শাওন শেখ হাসিনার জন্যই বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল: এমপি শাওন

আ’লীগ ১৪ বছরে বিএনপির উপর কোন অত্যাচার নির্যাতন করেনিঃ তোফায়েল আহমেদ
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)