ভোলার সাংবাদিকদের জন্য কল্যাণ ফান্ড গঠনের প্রস্তাবে সকল মহলের সমর্থন

স্টাফ রিপোর্টার ॥
গত ২২ জুন ভোলা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে ভোলার প্রবীণ সাংবাদিক ও সম্পাদক এম হাবিবুর রহমানের “বসুন্ধরা মিডিয়া অ্যাওয়ার্ড” পাওয়া উপলক্ষে ভোলা প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে তাঁকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। অধ্যক্ষ এম ফারুকুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম ও জেলা আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব। অনুষ্ঠানে ভোলার বিভিন্ন প্রশাসনিক কর্মকর্তাগণ, বিভিন্ন কলেজের অধ্যক্ষবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুধি ও সাংবাদিকগণ উপস্থিত ছিলেন।

---

ওই সভায় সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন দৈনিক আজকের ভোলা সম্পাদক আলহাজ্ব মুহাম্মদ শওকাত হোসেন। তিনি প্রবীণ সাংবাদিক এম হাবিবুর রহমানের পদক প্রাপ্তিতে অভিনন্দন জানান। তিনি তার বক্তব্যে ভোলার সাংবাদিকদের জন্য একটি কল্যাণ ফান্ড গঠনের প্রস্তাব দিলে উপস্থিত সাংবাদিক ও সুধিমন্ডলী ব্যাপক করতালির মাধ্যমে তাকে সমর্থন জানান।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মোঃ তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী। বিশেষ অতিথি পুলিশ সুপার মোঃ সাইফুল ইসলাম এবং জেলা আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক মঈনুল ইসলাম বিপ্লব এ প্রস্তাবকে সর্বান্তকরণে সমর্থন করে ফান্ড গঠনে অর্থ প্রদান ও সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
জনাব শওকাত হোসেন তাঁর বক্তব্যে বলেন, আজকের সভাপতি অধ্যক্ষ এম ফারুকুর রহমান প্রায় তিন দশক ভোলা প্রেস ক্লাবের সভাপতির দায়িত্ব পালন করেছেন এবং আজকের সংবর্ধিত মিডিয়া ব্যক্তিত্ব এম হাবিবুর রহমান এক যুগেরও বেশী সময় ধরে একটানা ভোলা প্রেসক্লাবের সভাপতি রয়েছেন। উনাদের অনেক অবদান রয়েছে। আর সেই অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে জনাব হাবিবুর রহমান সাহেব পদক প্রাপ্ত হয়েছেন। তিনি বলেনএক সময়ে ভোলা প্রেসক্লাবের ১ তলা ছোট একটি ভবন  ছিল,  তারপর দোতলা হলো , এখন নিজাম উদ্দিন সাহেবের সৌজন্যে আমরা চারতলা দৃষ্টিনন্দন ভবন পেয়েছি। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে নানা বিধ কারণে এই প্রেসক্লাবকে সকল একটিভ সাংবাদিকদের মিলন মেলায় পরিণত করতে আমরা ব্যর্থ হয়েছি। ভোলার সাংবাদিকরা প্রেসক্লাব কেন্দ্রিক নয় অথবা প্রেসক্লাব সাংবাদিকদের তীর্থস্থানে পরিণত হতে পারেনি। এটা কারো কাম্য নয়। তিনি বলেন যারা সাংবাদিকতার নামে ধান্দাবাজি প্রতারণা কিংবা মানুষকে জিম্মি করে টাকা আদায় করে, সেইসব নামধারী সাংবাদিকদের সাংবাদিকতা করা উচিত নয়। সাংবাদিকতা ধান্দাবাজী, চামচামি কিংবা মানুষকে ব্ল্যাকমেইল করার হাতিয়ার হতে পারে না। তিনি সে ধরনের মনোবৃত্তি কারো মধ্যে থাকলে তাদেরকে সাংবাদিকতার পবিত্র পেশা ত্যাগ করা করে অন্য যে কোন পেশা গ্রহণ করার অনুরোধ জানান। তিনি বলেন কিছুদিন আগে ময়মনসিংহের জাহান পত্রিকার সম্পাদক ও আঞ্চলিক সংবাদপত্র পরিষদের সভাপতি হাবিবুর রহমান ইন্তেকাল করেছেন। তার ইন্তেকালের ৩ দিনের মধ্যে ময়মনসিংহ প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে তার পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকার চেক প্রদান করেছে। কিন্তু আমাদের দুর্ভাগ্য ভোলার যেসব সাংবাদিকরা ইন্তেকাল করেছে অথবা অবসর গ্রহণ করেছে অথবা অসুস্থ হয়েছে তাদের কারও জন্য প্রতিষ্ঠানিক ভাবে আমরা কিছু করতে পারিনি। তাদেরকে প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে এক পয়সা সাহায্য করার মত কোন ফান্ড আমাদের নেই। একজন প্রথিতযশা সাংবাদিক অসুস্থ হয়ে হওয়ার পরে তার জন্য চিকিৎসার টাকা সংগ্রহ করতে আমাদেরকে যে বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হয়েছে তা খুবই দুঃখজনক।
তিনি বলেন, বাংলাদেশের প্রায় সব জেলায় প্রেসক্লাবের উদ্যোগে সাংবাদিকদের জন্য কল্যাণ ফান্ড রয়েছে। যে ফান্ডে পর্যাপ্ত পরিমাণ টাকা ফিক্সড ডিপোজিট করে রাখা হয়। সেই টাকার লভ্যাংশ থেকে সাংবাদিকরা যখন অবসর গ্রহণ করে তখন, যখন অসুস্থ হয় তার চিকিৎসার জন্য এবং যদি কেউ ইন্তেকাল করে তার পরিবারকে একটা ভালো এমাউন্টের টাকা প্রদান করা হয়। এই প্রেক্ষিতে তিনি ভোলা ভোলার সাংবাদিকদের জন্য এ ধরনের একটি কল্যাণ ফান্ড গঠন করার প্রস্তাব করলে উপস্থিত সুধিবৃন্দ তাদের স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থন জানান। তিনি ভোলার দুই প্রবীণ সাংবাদিক নেতৃদ্বয়ের প্রতি সাংবাদিকদের জন্য কল্যাণ ফান্ড প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানান। একই সঙ্গে তিনি প্রেসক্লাবের গঠনতন্ত্রকে আপডেট করে সকল কর্মরত প্রকৃত সাংবাদিকদেরকে এর সদস্য ভুক্ত করে প্রেস ক্লাবকে সাংবাদিকদের মিলন কেন্দ্রে পরিণত করা, এবং হলুদ সাংবাদিকদের চিহ্নিত করে সাংবাদিকতার অঙ্গন থেকে বিতাড়িত করার উদ্যোগ গ্রহণের জন্য নেতৃবৃন্দের প্রতি বিনীত অনুরোধ জানান।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক মোঃ তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী ইতিপূর্বে প্রেস ক্লাবের উন্নয়নের জন্য বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করেছেন উল্লেখ করে বলেন, এ ধরনের কল্যাণ ফান্ড হলে জেলা প্রশাসনের এর পক্ষ থেকে তিনিও অর্থ প্রদান সহ বিভিন্ন ভাবে সহযোগিতা করবেন। একইভাবে জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম পুলিশের কল্যাণ ফান্ডের পক্ষ থেকে সাংবাদিকদের কল্যাণ ফান্ডে ফান্ডে অর্থ সহযোগিতাসহ সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। বিশেষ অতিথি মইনুল হোসেন বিপ্লব তার বক্তব্যে জেলা সর্বপ্রথম ভোলাবাসীর নেতা তোফায়েল আহমেদ এমপি মহোদয়ের পক্ষ থেকে কল্যাণ পান্ডে এক লক্ষ টাকা প্রদানের ঘোষণা দিয়ে বলেন ফান্ড গঠনের জন্য তিনি সর্বাত্মক সহযোগিতা করবেন। এই স্বতস্ফূর্ত ঘোষণায় উপস্থিত সুধিমন্ডলী এবং সাংবাদিকদের মধ্যে ব্যাপক স্বতঃস্ফূর্ততা ও আশাবাদ লক্ষ করা গেছে।


এ বিভাগের আরো খবর...
শিক্ষক হত্যা-নির্যাতন এর বিচারের দাবিতে ভোলায় রাস্তায় নেমেছে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা শিক্ষক হত্যা-নির্যাতন এর বিচারের দাবিতে ভোলায় রাস্তায় নেমেছে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা
ভোলায় মাদরাসা শিক্ষার মান উন্নয়নে মতবিনিময় সভা ভোলায় মাদরাসা শিক্ষার মান উন্নয়নে মতবিনিময় সভা
ভোলায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে চার চোর আটক ভোলায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে চার চোর আটক
ধনিয়া ইউনিয়নে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার ধনিয়া ইউনিয়নে গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার
নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাগরে মাছ শিকার, ৬ জেলে আটক নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে সাগরে মাছ শিকার, ৬ জেলে আটক
লালমোহনে ব্যাংকে ঢুকে চোরের তা-ব লালমোহনে ব্যাংকে ঢুকে চোরের তা-ব
বাংলাদেশ গণঅধিকার পরিষদের ভোলা জেলার শাখার কমিটি গঠনের মতবিনিময় সভা বাংলাদেশ গণঅধিকার পরিষদের ভোলা জেলার শাখার কমিটি গঠনের মতবিনিময় সভা
তজুমদ্দিনে আশরাফুল ল্যাবরেটরীজ চিকিৎসা ও ঔষধ বিক্রয় কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন তজুমদ্দিনে আশরাফুল ল্যাবরেটরীজ চিকিৎসা ও ঔষধ বিক্রয় কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন
শিগগিরই চালু হচ্ছে ভোলা-ঢাকা বাস সার্ভিস শিগগিরই চালু হচ্ছে ভোলা-ঢাকা বাস সার্ভিস
পশু খাদ্যের বাড়তি দামেও লাভের আশা করছেন ভোলার খামারিরা পশু খাদ্যের বাড়তি দামেও লাভের আশা করছেন ভোলার খামারিরা

ভোলার সাংবাদিকদের জন্য কল্যাণ ফান্ড গঠনের প্রস্তাবে সকল মহলের সমর্থন
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)