চরফ্যাশনের ৭ ইউপিতে নির্বাচন, প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

চরফ্যাশন প্রতিনিধি ॥
২৮ শে নভেম্বর অনুষ্ঠিতব্য ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ভোলার চরফ্যাসনের সাত ইউনিয়নে উৎসবমূখর পরিবেশ বিরাজ করছে, প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করায় ইতিমধ্যে ৫ ইউনিয়নে নৌকা মার্কার চেয়ারম্যান পদ প্রার্থীদের নাম বিজয়ী হিসেবে  ঘোষণা করেছে উপজেলা নির্বাচন কমিশন। বাকী ২টি ইউনিয়নে নৌকা মার্কার প্রার্থীসহ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোট ৭জন চেয়ারম্যান পদ প্রার্থী। এদিকে ৭টি ইউনিয়নে প্রতিটি ওয়ার্ডের সাধারণ সদস্য পদ প্রার্থীরা ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট চেয়ে বেড়াচ্ছেন। এছাড়াও ওয়ার্ডগুলোকে মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত করার ঘোষণা দিয়ে উৎসব মুখর পরিবেশে শো-ডাউন, মাইকিং ও লিফলেট দিয়ে প্রচারণা করছেন। ওসমানগঞ্জ ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের টিউবওয়েল প্রতীক প্রার্থী লোকমান হোসেন বাকলাই বলেন, নির্বাচিত হতে পারলে প্রত্যেক পাড়া মহল্লায় বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থার পাশাপাশি অসহায় হত দরিদ্র,পক্সগু এবং প্রতিবন্ধীদের সরকারী সুবিধার আওতায় আনার জন্য কাজ করব। ১নং ওয়ার্ডের ফুটবল প্রতিকের প্রার্থী মুন্না খান বলেন, আমার ওয়ার্ড থেকে ইভটিজিং, বাল্য বিবাহ রোধ, মাদক ও চাঁদাবাজী মুক্ত ওয়ার্ড গঠনের পাশাপাশি হত দরিদ্র মানুষকে সরকারী সুবিধা এবং কৃষকদের চাষাবাদে সেচ সুবিধায় ড্রেনেজ ব্যবস্থার আওতায় আনার জন্য কাজ করব।

---

৭নং ওয়ার্ডের তালা প্রতিক প্রার্থী কামরুল হাসান মিঠু বলেন, আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে আমার ওয়ার্ডে জলাবদ্ধতা নিরসনে এবং কৃষক শ্রুমিককদের উন্নয়নে প্রত্যেক এলাকায় উন্নয়নমূলক কাজ করার পাশাপাশি অসহায় বিধবা,পক্সগু ও প্রতিবন্ধীদের সরকারী সুবিধা পেতে সাহয্য করব। একই ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের তালা প্রতিকের প্রার্থী মো. মেজবাহ উদ্দিন জানান, ওয়ার্ডের অসহায় ও খেটে খাওয়া দিন মজুর মানুষকে সরকারের জাতীয় উন্নয়নের অংশিদার করতে একটি মডেল ওয়ার্ড গঠন করা হবে। এজন্য প্রত্যেক শ্রেণী পেশার ভোটারদের উন্নয়নে কাজ করব।
আবদুল্লাহপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও ফুটবল প্রতিকের প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ বলেন, প্রত্যেক নাগরীকের জীবনমান উন্নয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকার কাজ করছে। আর এই সরকারের সকল সুযোগ সুবিধা তৃণমূল পর্যায়ে পৌছানোর জন্য আমি এর আগেও কাজ করেছি। ইউনিয়ন পরিষদের জন্য বরাদ্ধকৃত সকল সরকারী সুবিধা প্রত্যেক অসহায় মানুষ পেয়েছে এবং আবারো নির্বাচিত হলে আমার এ ওয়ার্ডকে একটি মডেল ওয়ার্ডে উন্নীত করার জন্য কাজ করব। ৪নং ওয়ার্ডের ফুটবল প্রতিকের প্রার্থী ও সাবেক প্যানেল চেয়ারম্যান মফিজল হক মাস্টার বলেন, আমার ওয়ার্ডে দীর্ঘদিন ধরে আওয়ামীলীগের পাশে থেকে মানুষের জন্য কাজ করেছি।
আমরা পারিবারিকভাবেই স্থানীয় ছেলে মেয়েদের শিক্ষাগত উন্নয়নে শিক্ষকতার মধ্য দিয়ে কাজ করেছি। এছাড়াও আমি দীর্ঘদিন ইউপি সদস্য থেকে প্যানেল চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেছি পাশাপাশি এই ওয়ার্ডের অসহায় জেলে ও কৃষক শ্রমীকদের ভিজিডি’সহ সরকারী সকল সুযোগ সুবিধার আওতায় এনেছি। ২নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও মোরগ প্রতিকের প্রার্থী মো. আনোয়ার বলেন, আমি দীর্ঘদিন এই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছি। নিজের জন্য কিছুই করেনি বরং ওয়ার্ডের পত্যেক ভোটারের পাশে থেকে কাজ করেছি। নির্বাচনে জয় যুক্ত হলে এই ওয়ার্ডের প্রত্যেক ভোটারের জন্য উন্নয়নমূলক কাজ করব।
১,২ ও ৩নং ওয়ার্ডে বই প্রতীকের সংরক্ষিত নারী সদস্য প্রার্থী রিয়া বেগম নিপা বলেন, ইউপি সদস্য নির্বাচিত হলে আমার ৩টি ওয়ার্ডের নারীদের উন্নয়নে এবং নারীর অধিকার বাস্তবায়নে বাংলাদেশ সরকারের সকল উন্নয়নমূলক সেবা তৃণমূলের নারীদের মাঝে পৌছে দেয়ার জন্য কাজ করব। ৩নং ওয়ার্ডের তালা প্রতীকে মেম্বার পদ প্রার্থী মাহাদুল হক পঞ্চায়েত বলেন,নির্বাচিত হলে এই ওয়ার্ডের উন্নয়নে ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে সকল বাসীন্দাদের পাশে থেকে কাজ করব। ৮নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য ও তালা প্রতিকের প্রার্থী আবদুল করিম মোহরী বলেন, বাল্যবিবাহ, ইভটিজিং, মাদক ও সন্ত্রাস এবং চাঁদাবাজ নির্মূলে প্রশাসনকে সহযোগীতার পাশাপাশি এলাকার রাস্তাঘাট মসজিদ মাদ্রাসার অবকাঠামোগত উন্নয়নে ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট দপ্তরকে সার্বিক সহযোগীতায় কাজ করে যাব।
নজরুলনগর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের ফুটবল প্রতিকের প্রার্থী মো. ছাবেদ খলিফা বলেন, আমাদের প্রান্তিক এলাকার উন্নয়নে দীর্ঘ বছর ধরে আমি আমার ওয়ার্ডের মানুষের জন্য সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংগঠনিকভাবে সর্বস্তরের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কাজ করেছি। এই ওয়ার্ডের মানুষের সেবায় আমি নিজেকে বিলিয়ে দিয়েছি। আশাকরি ভোটারেরা তাদের উন্নয়নে সুযোগ্য ব্যক্তিকেই নির্বাচিত করবেন। ৩নং ওয়ার্ডের ফুটবল প্রতিকের প্রার্থী মো. কামরুল ইসলাম বলেন, আসন্ন নির্বাচনে এই ওয়ার্ডের স্থানীয় ভোটার ও সর্ব সাধারণের উন্নয়নের অংশীদার হওয়ার জন্য নির্বাচন করছি। নির্বাচিত হলে আমার ওয়ার্ডে জলাবদ্ধতা নিরসনে এবং এলাকা থেকে সন্ত্রাস ও মাদক নির্মূলে প্রশাসনকে সহযোগীতা করব। একই ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ফুটবল প্রতিকের মেম্বার সদস্য পদপ্রার্থী নুরে আলম বলেন, আমার এই ওয়ার্ডের সকল উন্নয়নে এবং প্রত্যেক বাসিন্দার বিপদ আপদে পাশে থেকে সহযোগীতার মধ্য
দিয়েই এই ওয়ার্ডকে মডেল ওয়ার্ডে অন্তর্ভূক্ত করব। রসুলপুর ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের সাবেক মেম্বার ও প্যানেল চেয়ারম্যান বর্তমানে ফুটবল প্রতিকের প্রার্থী নুরে আলম বাবুল চৌধুরী বলেন, আগের ন্যায় স্থানীয় উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সকল বাসিন্দাকে নিয়ে কাজ করবো।


এ বিভাগের আরো খবর...
চরফ্যাশনে ২১ জেলে নিয়ে সাগরে ট্রলার ডুবি ১জন উদ্ধার চরফ্যাশনে ২১ জেলে নিয়ে সাগরে ট্রলার ডুবি ১জন উদ্ধার
চরফ্যাশনের কমিউনিটি হেলথ ক্লিনিকগুলোতে নেই তদারকি ॥ নতুন ভবনে আবর্জনার মধ্যেই স্বাস্থ্য সহকারী দিচ্ছে করোনার ভ্যাকসিন চরফ্যাশনের কমিউনিটি হেলথ ক্লিনিকগুলোতে নেই তদারকি ॥ নতুন ভবনে আবর্জনার মধ্যেই স্বাস্থ্য সহকারী দিচ্ছে করোনার ভ্যাকসিন
মনপুরায় ঘূর্ণীঝড়ে কেড়ে নিল শত শত কৃষকের স্বপ্ন মনপুরায় ঘূর্ণীঝড়ে কেড়ে নিল শত শত কৃষকের স্বপ্ন
নৌযান বন্ধ, সারা দেশের সাথে বিচ্ছিন্ন মনপুরা উপকূল নৌযান বন্ধ, সারা দেশের সাথে বিচ্ছিন্ন মনপুরা উপকূল
তজুমদ্দিনে হতদরিদ্রদের মাঝে ঢেউটিন, নলকূপ ও গৃহনির্মাণ অর্থ বিতরন করেন এমপি শাওন তজুমদ্দিনে হতদরিদ্রদের মাঝে ঢেউটিন, নলকূপ ও গৃহনির্মাণ অর্থ বিতরন করেন এমপি শাওন
ভোলায় সরকারের উন্নয়ন ভাবনা নিয়ে মহিলা সমাবেশ ভোলায় সরকারের উন্নয়ন ভাবনা নিয়ে মহিলা সমাবেশ
লালমোহনে পূর্বশত্রুতার জেরধরে ২জনকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ লালমোহনে পূর্বশত্রুতার জেরধরে ২জনকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ
লালমোহনে কৃষকের মাঝে এসিআই মটরসের পক্ষ থেকে কৃষি যন্ত্র বিতরণ লালমোহনে কৃষকের মাঝে এসিআই মটরসের পক্ষ থেকে কৃষি যন্ত্র বিতরণ
ভোলার রাজাপুরে আদালতের রায় অমান্য করে ঘর নির্মান, বাড়ি দখল, গাছ-মাছ লুট ভোলার রাজাপুরে আদালতের রায় অমান্য করে ঘর নির্মান, বাড়ি দখল, গাছ-মাছ লুট
ভোলা সমিতির উদ্যোগে ১৭ জুটির বর্ণাঢ্য বিবাহ অনুষ্ঠান ভোলা সমিতির উদ্যোগে ১৭ জুটির বর্ণাঢ্য বিবাহ অনুষ্ঠান

চরফ্যাশনের ৭ ইউপিতে নির্বাচন, প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)