আবারো অফিসার্স ক্লাব ঢাকার সম্পাদক নির্বাচিত হলেন ভোলার কৃতি সন্তান মেজবা উদ্দিন

এম শাহরিয়ার জিলন: 

আবারো অফিসার্স ক্লাব ঢাকার সাধারণ সম্পাদক হলেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব দ্বীপ জেলা ভোলার কৃতি সন্তান মেজবাহ উদ্দিন। অফিসার্স ক্লাব ঢাকার ৫২তম বার্ষিক সাধারণ সভায় সর্বসম্মতিক্রমে আগামী দুই বছরের জন্য মেজবাহ উদ্দিনকে পুনরায় সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

---

২০২০ সালে নির্বাচনের মাধ্যমে এ দায়িত্ব গ্রহণের পর মেজবাহ উদ্দিন অসাধারণ সাফল্যের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছেন। ফলশ্রুতিতে করোনাকালে নির্বাচন এড়িয়ে, মন্ত্রী পরিষদ সচিবের সভাপতিত্বে ১ অক্টোবর অফিসার্স ক্লাবের ৫২ তম সাধারণ সভায় তাকে দায়িত্বের জন্য পুনর্বিবেচিত করা হয়।

গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, সাধারণ সম্পাদক ক্লাবের প্রশাসনিক প্রধান। সরকারের মন্ত্রিপরিষদ সচিব পদাধিকার বলে অফিসার্স ক্লাবের সভাপতি। বর্তমানে মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে রয়েছেন খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

ঢাকা অফিসার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মেজবাহ উদ্দিন পেশাগত পরিচয়ের বাইরে একজন সমাজ সেবক হিসেবে আরও আগেই সুনাম কুড়িয়েছেন। করোনাকালে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করায় ‘কোভিড-১৯ হিরো গোল্ড অ্যাওয়ার্ড’ শীর্ষক সম্মাননায় ভূষিত হন তিনি।

শুধু তাই নয় অফিসার্স ক্লাব ঢাকার অসহায় দুস্থ কর্মচারীদের সহায়তার জন্য একটি বিশেষ কল্যাণ তহবিল গঠন করেছেন মেজবাহ উদ্দিন। এর বাইরে সাধারণ মানুষের জন্যও কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। নিজের মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত ছাবেরা ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে কয়েক হাজার দুস্থ পরিবারকে করোনাকালে সহায়তা দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য জনহিতকর কাজ ও সবার সঙ্গে মিশে যাওয়ার অদ্ভুত ক্ষমতার কারণে মেজবাহ উদ্দিন সবার কাছেই তুমুল জনপ্রিয়। তিনি ২০২০ সালের জানুয়ারির শেষ দিকে সরকারি কর্মকর্তাদের প্রতিনিধিত্বকারী সর্ববৃহৎ সংগঠন অফিসার্স ক্লাব ঢাকার নির্বাচনে বিপুল ভোটে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে জনসেবামূলক কাজ, সাংস্কৃতিক পৃষ্ঠপোষকতাসহ নানা ক্ষেত্রে জড়িত থাকায় সবার সঙ্গেই তার হৃদ্যতা।

বর্তমানে তিনি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব হিসেবে কর্মরত আছেন। বিসিএস ১১ ব্যাচের এই কর্মকর্তা এর আগে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সাবেক পিএস, খুলনার জেলা প্রশাসক, চট্টগ্রাম এর জেলা প্রশাসক, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) হিসেবে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেছেন এবং বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ ডিসি হিসাবে প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে পুরস্কৃত হন।

মেজবাহ উদ্দিনের ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই সততা ও নিষ্ঠার জন্য প্রশংসিত হয়ে আসছেন। কর্মক্ষেত্রে সততা এবং দক্ষতার জন্য একাধিকবার প্রধানমন্ত্রীসহ সরকারের শীর্ষ পর্যায় থেকে পেয়েছেন নানা স্বীকৃতি।

পুনরায় অফিসার্স ক্লাব ঢাকার সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় মেজবাহ উদ্দিন ক্লাবের সদস্যদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর পাশাপাশি তাদের কল্যাণে কাজ করে যাওয়ার অভিপ্রায়  ব্যক্ত করেন।


এ বিভাগের আরো খবর...
আ’লীগ ১৪ বছরে বিএনপির উপর কোন অত্যাচার নির্যাতন করেনিঃ তোফায়েল আহমেদ আ’লীগ ১৪ বছরে বিএনপির উপর কোন অত্যাচার নির্যাতন করেনিঃ তোফায়েল আহমেদ
জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি ॥ বিপাকে ভোলার জেলেরা জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধি ॥ বিপাকে ভোলার জেলেরা
বোরহানউদ্দিনে বাসের চাপায় পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী নিহত বোরহানউদ্দিনে বাসের চাপায় পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী নিহত
চরফ্যাসনের জনতা বাজারে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ্যদের খোজ নিলেন গ্রামীন জন উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক চরফ্যাসনের জনতা বাজারে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ্যদের খোজ নিলেন গ্রামীন জন উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক
রাজপথ দখল করা অত সহজ নয় ॥ তোফায়েল আহমেদ রাজপথ দখল করা অত সহজ নয় ॥ তোফায়েল আহমেদ
ভোলার ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশের গ্রেফতার এবং বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি মির্জা ফখরুলের ভোলার ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশের গ্রেফতার এবং বিচার বিভাগীয় তদন্ত দাবি মির্জা ফখরুলের
ভোলায় পুলিশের সাথে সংঘর্ষ: হাইকোর্টে বিএনপির ৬০ নেতাকর্মীর জামিন ভোলায় পুলিশের সাথে সংঘর্ষ: হাইকোর্টে বিএনপির ৬০ নেতাকর্মীর জামিন
ভোলায় বৃক্ষমেলার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত ভোলায় বৃক্ষমেলার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত
ভোলায় আইনজীবিদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত ভোলায় আইনজীবিদের মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত
মনপুরা পুলিশের রিমান্ড শেষে আদালতে জবানবন্দি দিলেন জলদস্যু মফিজ মনপুরা পুলিশের রিমান্ড শেষে আদালতে জবানবন্দি দিলেন জলদস্যু মফিজ

আবারো অফিসার্স ক্লাব ঢাকার সম্পাদক নির্বাচিত হলেন ভোলার কৃতি সন্তান মেজবা উদ্দিন
(সংবাদটি ভালো লাগলে কিংবা গুরুত্ত্বপূর্ণ মনে হলে অন্যদের সাথে শেয়ার করুন।)
tweet

পাঠকের মন্তব্য

(মতামতের জন্যে সম্পাদক দায়ী নয়।)